ফেসবুক যখন Cambridge Analytica data leak এর সাথে জড়িত সেইরকম একটি সময় মার্ক জুকারবার্গ এবছর ফেসবুকের বার্ষিক F8 ডেভেলপার কনফারেন্সে ফেসবুক ডেটিং এর কথা ঘোষণা করেছেন। ফেসবুক ডেটিং এমন ভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যা Tinder এর মত জনপ্রিয় ডেটিং অ্যাপ্লিকেশান গুলির সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে।

San Jose এ প্রচুর ভিড়ের সামনে জুকারবার্গ নতুন ফেসবুক ডেটিং এর বৈশিষ্ট্যটি ব্যাখ্যা করেছেন। তিনি বাস্তব ও দীর্ঘমেয়াদী সম্পর্ক তৈরি করার জন্য একটি হাতিয়ার হিসাবে এটিকে ব্যাখ্যা করেছেন।

তিনি বলেছেন- “আমরা ফেসবুককে এমন স্থানে নিয়ে যেতে চাই যেখানে আপনি অর্থপূর্ণ সম্পর্ক শুরু করতে পারেন। আমরা শুরু থেকেই এই বিষয়ের গোপনীয়তা ও নিরাপত্তা নিয়ে পরিকল্পনা করেছি”।

ফেসবুক ডেটিং এর বৈশিষ্ট্য

যাইহোক, ফেসবুক ডেটিং এ একটি ডেডিকেটেড ইনবক্স থাকবে। কিন্তু প্রথমবারের মতো কারো সাথে চ্যাট করার সময় আপনি কোনও ছবি পাঠাতে পারবেন না। আপনি শুধু ফেসবুক মেসেঞ্জারের মত টেক্সট মেসেজ পাঠাতে পারেন। ফেসবুক এটিকে একটি নিরাপত্তার পরিমাপ হিসাবে বর্ণনা করেছে।

এটিতে Dating preferences, mutual friends ইত্যাদির উপর ভিত্তি করে একটি অনন্য অ্যালগরিদম ব্যাবহার করা হয়েছে। এছাড়াও, আপনি ফেসবুক গ্রুপ ও ইভেন্টগুলির মাধ্যমে রোমান্টিক কিছু খুঁজে পেতে পারবেন। উদাহরণস্বরূপ, ধরুন আপনি একটি সিনেমাতে যাচ্ছেন। তাহলে আপনি আপনার প্রোফাইল আনলক করতে পারবেন। যার মাধ্যমে আপনি তাদেরকে খুঁজে পেতে পারবেন যারাও ওই সময় একই সিনেমাতে যাচ্ছে।

ব্যবহারকারীদের ডেটিং প্রোফাইলকে প্রকৃত ফেসবুক প্রোফাইল থেকে আলাদা করার জন্য ডেটিং প্রোফাইলে শুধুমাত্র আপনার প্রথম নামটি ব্যবহার করা হবে। অপ্ট-ইন ফিচারের মাধ্যমে  আপনি তাদের সাথে বন্ধুত্ব করতে পারবে যারা আপনার Facebook friend নয়। এবং এমনকি আপনার ফেসবুক ফ্রেন্ডসরা তার ডেটিং প্রোফাইল দেখতে সক্ষম হবে না।

সম্ভবত ফেসবুক এই পরিষেবাটি বিনামূল্যে দিতে পারে। এটি টিন্ডারের মত একটি চ্যালেঞ্জিং পরিষেবা হবে।

 

ফেসবুক ডেটিং কি Tinder এর থেকে ভালো?

এটা বোঝা খুব একটা কঠিন নয় যে এইসব ডেটিং অ্যাপগুলি(Facebook dating, Tinder, Hinge, Bumble) প্রায় অনুরূপ। যার অর্থ হল ফেসবুক আবার নতুন আপডেটের মাধ্যমে অগ্রগতির খোঁজ করছে। ফেসবুকে টাচস্ক্রিপ্টের মাধ্যমে ডেটিং করা সহজ, যেমন Snapchat থেকে Instagram Stories কপি করা। এটা বললে ভুল হবেনা যে ইন্সটাগ্রাম স্টোরি যেমন স্নাপচ্যাটের অনুকরণ, তেমনই ফেসবুক ডেটিং ও Tinder এর অনুকরণ।

কিন্তু একটি গুরুত্বপূর্ণ বাস্তবতা হল টিন্ডারের মত ডেটিং অ্যাপ্লিকেশনগুলি তাদের পরিষেবাগুলি কাজে লাগাতে ফেসবুকের ডেটার উপর নির্ভর করে। সেই অ্যাপ্লিকেশনগুলির জন্য সাইন আপ করার পরে আপনি অবিলম্বে আপনার ফেসবুক ফটোগুলি, পাশাপাশি আপনি যেখানে বাস করেন ও অন্যান্য তথ্য ইত্যাদি যুক্ত করতে পারেন। এমনকি আপনি এটিতে সাইন আপ করলে Tinder আপনার ফেসবুকের বন্ধু তালিকা পেয়ে যায়। কোনও সামাজিক নেটওয়ার্ক(social network) ছাড়া এই অ্যাপ্লিকেশানগুলি আদও বিদ্যমান কি না তা বলা যায় না।

এক মাস আগে ফেসবুকের ডাটা-শেয়ারিং নীতি পরিবর্তনের সময় Tinder বন্ধ হয়ে যায়। এবং এখন Tinder এবং অন্যান্য অ্যাপ্লিকেশানগুলি ফেসবুকের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে যা Tinder এর মতো প্রত্যেক ডেটিং অ্যাপ্লিকেশনগুলিকে এতদিন পরিষেবা দিতে সাহায্য করেছে।

 

যাইহোক, ডেটিং হবে ফেসবুকের জন্য একটি নিখুঁত পরিষেবা। বিশ্বের বৃহত্তম সোশ্যাল নেটওয়ার্ক তার নিজস্ব ডেটিং পরিষেবা নির্মাণ করতে চলেছে। Third-party অ্যাপ্লিকেশনগুলিতে ব্যবহারকারীদের ডেটা স্থানান্তর করার পরিবর্তে ফেসবুক নিজেই এই ডেটিং  পরিষেবা চালু করতে চলেছে।

 

আশা করি পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে। ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

ধন্যবাদ।

Categories: Facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *