এই প্রচন্ড গরমে রাস্তায় বের হলে ঘাম হবেই, এটা খুব স্বাভাবিক ব্যাপার। আর ঘাম হওয়া মানেই জামার হাতার নিচে, পিঠে কিংবা শার্টের কলারে ঘামের হলদেটে দাগ ও অনিবার্য। রাস্তা ঘাটে চলার সময় এইরকম দাগ হয়ে গেলে সবার সামনে অস্বস্তিতে পড়তে হয় । তবে এই দাগ যাতে না পড়ে তার জন্য রয়েছে কিছু উপায়। এই অস্বস্তিকর পরিস্থিতি এড়াতে ‘সোয়েট প্যাডস’ অথবা ‘অ্যান্টিপার্সপরান্ট রোল অন’ ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। এখানে শুধু আপনার জন্যেই রইল এমনই কিছু উপায়। যাতে এই হলদেটে দাগ এড়ানো সম্ভব। কেমন ভাবে তা সম্ভব জেনে নিনি-

সোয়েট প্যাড ব্যবহার: যাদের হাতের নীচে অতিরিক্ত ঘামে তারা কাপড়ের নিচে সোয়েট প্যাড ব্যবহার করতে পারেন। এটি একটি বিশেষ ধরনের তুলোর প্যাড যা আঠার সাহায্যে বগলের কাপড়ের সঙ্গে আটকে দেওয়া হয়, এতে তুলা আপনার সমস্ত ঘাম শুষে নেবে। ফলে কাপড়ে আর দাগ পড়ে না।

অ্যান্টিপার্সপরান্ট ব্যবহার: সাধারণ ডিওডোরেন্ট কাপড় দাগুমুক্ত রাখতে পারে না। তাই আপনি বেছে নিতে পারেন অ্যান্টিপার্সপরান্ট ডিওডোরেন্ট। এইগুলো কাঁধ এবং হাতের নীচে দীর্ঘ সময় শুকনো রাখে। ফলে কাপড়ে ঘামের দাগ পড়ার সম্ভাবনাও অনেকটা কমে যায় ।

Image Source : Google

ট্যালকম পাউডার ব্যবহার: পাউডার ঘাম নিঃসরণকারী লোমকূপগুলো কিছু সময় বন্ধ রাখে। ফলে ঘামের মাত্রাও অনেকটা কমে আসে। তবে পাউডার ব্যবহারের আগে ও পরে যখনই চান করবেন তখন অবশ্যই হাত ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে।

বগলের নীচে শেভ করা: আপনার বগলে যদি অতিরিক্ত লোম থাকে তাহলে সেটাও কিন্তু অতিরিক্ত ঘাম হওয়ার অন্যতম কারণ। কারণ ঘাম বেশি হলে ব্যাক্টেরিয়ার সংক্রমণ বৃদ্ধি পায়। তাই নিয়ম করে আপনার বগল শেভ করুন। এতে ঘাম নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি দুর্গন্ধও অনেকটা কমে আসবে। আর ঘাম কম হলে কাপড়ে দাগও কম হবে।

মোছার জন্য টিসু: শুকনা বা ভেজা (ওয়েট টিসু), যে কোনও টিসুই ঘাম নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য উপকারী। ব্যাগে রাখা বেশ সহজ তাই বাড়তি ঝামেলা এড়ানো যায়। আর অতিরিক্ত ঘাম মুছে ফেললে কাপড়ে দাগ হওয়ার কোনও ঝামেলাও থাকে না।

The post অতিরিক্ত ঘামের কারণে জামায় দাগ হয়ে যাচ্ছে?কিছু টিপস মাথায় রাখলেই এড়ানো যায় ঘামের দাগ! appeared first on Moner Diary.

Categories: Others

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *