মুগ ডাল খুবই সুস্বাদু এবং অনেকেরই প্রিয় একটি খাবার। বাঙালির প্রিয় খাদ্য ভাত এবং তার সাথে ডাল হলো মাস্ট। ভাত, মুগডাল আর সাথে আলুপোস্ত। ব্যাস বাঙালির পাত, চেটেপুটে সাফ। আমরা এই বিশেষ ডালটি খেয়ে থাকি বটে, কিন্তু এই ডালটির অন্য অনেক এমন গুন আছে যা হয়তো আমাদের অজানা। তাহলে আসুন আজ জেনে নিই।

জানেন কি যে মুগ ডাল ত্বকের পক্ষে খুবই উপকারী? আপনার ত্বকের যাবতীয় সমস্যার সঙ্গে মোকাবিলা করবে এই ডাল। আপনার মুখের শুষ্ক ত্বক নরম ও নমনীয় করতে মুগডাল সারারাত কাঁচা দুধে ভিজিয়ে ডালের পেস্ট করে ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন। ১৫ মিনিট প্যাকমুখে মাখতে হবে। তারপর মুখ ধুয়ে একটা নরম তোয়ালে দিয়ে মুখ মুছে নিন।

মুগ ডালের একটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এটি ত্বকে তেল ময়লা আটকে পড়তে দেয় না। ব্রণের সমস্যায় মুগ ডাল পেস্টের সঙ্গে ঘি মিশিয়ে আঙুলের ডগা দিয়ে ঘষে ঘষে সারা মুখে মেখে রাখুন। ১৫ মিনিট পরে মুখ ধুয়ে নিন। ফেসপ্যাকটি সপ্তাহে তিন দিন ব্যবহার করতে হবে।

Image Source : Google

অনেকেরই মুখে লোম থাকে, যদি লোম তুলতে কেমিক্যাল ব্লিচ ব্যবহার করেন, তা ত্বকের জন্য ক্ষতিকর আর থ্রেডিং একটি কষ্টকরপদ্ধতি। এটা থেকে মুক্তি পেতে সারারাত ভিজিয়ে ডালের পেস্ট তৈরি করে সাথে কিছুটা চন্দন গুঁড়া ও কমলা লেবুর খোসা গুঁড়া মেশাতে হবে। প্রয়োজনে সামান্য দুধ মেশাতে পারেন। এই পেস্টটি কয়েকবার মুখে ম্যাসাজ করতে হবে। দুই- তিন বার ব্যবহারের পরই আপনি মুখে মুখের লোমের পরিমাণ কমতে থাকবে।

নিয়মিত রোদে বের হলে সান ট্যান(ত্বক রোদে পোড়া) সাধারণ ঘটনা। ত্বককে সূর্যের ক্ষতিকর ইউভি রশ্মির হাত থেকে রক্ষা করতে আস্থা রাখুন মুগ ডালে। ডাল পেস্টের সঙ্গে ঠাণ্ডা দই বা আলোভেরা জেল মেশান। তারপর সেই মিশ্রণ আক্রান্ত স্থানে কিছুক্ষণ লাগিয়ে রাখুন। ১০ মিনিট পর ধুয়ে নিন। এটা সপ্তাহে ২ দিন করলেই উপকার পাবেন।

The post মুগ ডাল শরীরের জন্য কতটা উপকারী জানেন ? জানলে অবাক হবেন appeared first on Moner Diary.

Categories: food

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *